slideshow 1 slideshow 2 slideshow 3

You are here

রাজনৈতিক প্রবন্ধ

জলপাই রঙের অন্ধকারঃ দেশপ্রেমের মিলিটারাইজেশন, ফ্যাসিজমের ব্যাকরণ

একটা স্টেইট কখন ফ্যাসিস্ট হয়ে ওঠে? যখন সে ম্যাসিভ মিলিটারাইজেশনের দিকে অগ্রসর হয়, ওয়ার-কে গ্লোরিফাই করা শুরু করে, মাসকুলিনিজমের পক্ষে স্টেইট লেভেলে এডভোকেসি শুরু করে। সবচেয়ে বড় কথা, যখন সে তার নিজ টেরিটরির ভেতরের কোনো একটা কমিউনিটি-কে দ্রুত বা ধীরেধীরে পারসিকিউট করা শুরু করে, অথবা/এবং ‘লেবেনস্রাম-এর’ বা ‘ন্যাশনাল সিকিওরিটির’ আজব দোহাই দিয়ে নিজের ইম্পিরেয়াল এম্বিশন-কে ফুলফিল করে।

সাম্প্রদায়িক রাজনীতির ফল্টলাইনঃ দূর্গা মায়ের সন্তানদের পাশে আমরা কি দাঁড়াবো না?

উৎসর্গ
ফকির মজনু শাহ
ভবানী সন্ন্যাসী
জয় দূর্গা দেবী চৌধুরাণী

হরি আছেন পূর্বে, আল্লা আছেন পশ্চিমে, তুমি তোমার হৃদয় খুঁজে দেখ- করিম ও রাম উভয়েই আছেন হৃদয়ে; এ জগতের সমস্ত মানব-মানবীই তাঁর অংশ। _সন্ত কবীরের গান; তর্জমা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর_

রানা প্লাজা কোনো অভিনব ঘটনা নয়

আসেন পুরো বিষয়টা একটু ঠাণ্ডা মাথায় চিন্তা করে দেখি।

স্যালুট শহীদ রুমী স্কোয়াড

যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবীতে শাহবাগের প্রজন্ম চত্বর কেন্দ্রিক পুরো বাংলাদেশ জুড়ে গণজাগরণের হাওয়া বইতে শুরু করে। অনেক বেশী লোকের সমাবেশ হওয়ার কারনে এবং এটা যেহেতু একটা বড় ধরনের গনজাগরন সুতরাং তার দরকার পড়েনি হিংসাত্বক হওয়ার। অহিংস পদ্ধতিতেই এই আন্দোলন চলে আসছে অনেক দিন ধরে।

স্তালিননামা- ১।

 স্তালিন নিজেকে দেবতুল্য কিছু একটা হিসেবে চিত্রায়িত করতে চেয়েছিলেন। বলা হয় তাঁর ক্ষমতায় আরোহণের পর রাশিয়ায় কোন সমাজতন্ত্র কিংবা মার্ক্সবাদ ছিল না, যা ছিল তাকে সর্বসাকুল্যে বলা যেতে পারে স্তালিনবাদ বা রাষ্ট্র চালনায় স্তালিনের ব্যক্তিগত খেয়াল খুশি। লেনিনের পর রাষ্ট্র চালনায় যাকে সর্বাধিক যোগ্য বলে মনে করা হত তিনি ছিলেন  ট্রটস্কি। লেনিনের নিজের ভাষায় স্তালিন ছিল বেশি কঠোর এবং তাকে ট্রটস্কির মতন সমাজতন্ত্রের প্রতি অধিক অনুগত, অধিক ধৈর্যশীল, অধিক সহনশীল এবং কম খেয়ালি কাউকে দিয়ে অপসারিত করা হোক। লেনিন বেঁচে থাকলে স্তালিনকে পার্টির সাধারণ সম্

জামায়াতে ইসলামীরে নিষিদ্ধ করণের লাইগা আমেরিকার "সম্মতির" কোনো দরকার নাই

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র হইল একটা কুমির। আর কুমিররে কোনোদিন খাল কাইটা ঘরে আনতে হয় না। আনলে, যে আনে কুমির তারেই সবার আগে খায়া ফালায়, তারপরে ধীরেসুস্থে অন্যদের খাওয়া শুরু করে।

শাহবাগ ট্রিলজি

শাহবাগ আন্দোলন নিয়ে আমার তিনটি লেখা---
 
শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরে তৈরি হচ্ছে নতুন ইতিহাস...
 
জনতার কেবল জনতাই আছে। আপনার কাছাকাছি লোকটা সে-ই, যে আপনার পাশে কাঁধে কাঁধ হাতে হাত নিয়ে চলছে। মসনদের আমরা কেউ নই, মসনদের সনদ আমরাই দিই বা ফেলি, কেননা জাহানারা আজো আমাদের ইমাম। (ফারুক ওয়াসিফ)
 
শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরে তৈরি হচ্ছে নতুন ইতিহাস...
 
আমরা এসেছি। আমরা আসছি। আমরা আসতেই থাকব। বাণের পানির মতো। এখানে। এই শাহবাগ চত্বরে।
 

জামায়াতে ইসলামীকে নিষিদ্ধ করার ওপর নির্ভর করছে শাহবাগ আন্দোলনের ন্যুনতম সফলতা...

''মানুষ আইতাছে যমুনার বানের লাহান/ মানুষ আইতাছে মহররমে ধূলার সমান...''

ফেব্রুয়ারি ০৫, ২০১৩

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল যুদ্ধাপরাধী কাদের মোল্লাকে তিনশতাধিক খুন ও ধর্ষণের দায়ে “যাবজ্জীবন কারাদণ্ড” প্রদান করেন।

'মুসল্লী' দের বাংলাদেশ(!!), ওয়ার অন টেরর, শাহবাগ

পাক-ভারত বিভাগের আগে উচ্চ-মধ্যবিত্ত শ্রেণী সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাকে পৃষ্ঠপোষকতা(!!) করত যাতে অন্য সম্প্রদায়ের প্রতিযোগীতা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যায়। আর পাক-ভারত বিভাগের পর সাপ্রদায়িকতা কে উসকে দেওয়া হত নিজেদের সম্প্রদায়ভুক্ত নিম্নবিত্ত লোকদের শ্রেণী চেতনা রোধ করার জন্য। আর ২০১৩ বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িকতা কে উসকে দেওয়া হয় শুধু অর্থনৈতিক কারণে নয়- বরং জাতীয় পরিচয়ের সংকটের জায়গা থেকে মুসলিম সাম্প্রদায়িকতা পৃষ্ঠপোষকতাকারী রাজনৈতিক দল গুলো এক ধরণের racist আধিপত্য কায়েম করতে চায়;যা বাকি সব জাতি/ধর্ম/বর্ণ কে নিম্ন বর্গীয় বিবেচনা করে। এবং তাদের intellectual গুরুরা নানা projection এর মাধ্যমে

ধর্ম ভিত্তিক সাম্প্রদায়িক রাজনীতির বিষবৃক্ষ

বাংলার মাটিতে ধর্মভিত্তিক রাজনীতির বিষবৃক্ষের শিকড় অনেক গভীরে প্রোথিত। এই বিষবৃক্ষটি বাংলার গনমানুষের কু-সংস্কার, অজ্ঞানতা, অসচেতনতা ও ধর্মীয় গোড়ামীকে পুঁজি করে বাংলার মাটি থেকে জারক রস সংগ্রহ করে চলেছে। এবং শিক্ষা, চিকিৎসা ও ব্যাংকিং সংক্রান্ত অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানের মোটা মোটা শিকড় তৈরী করে বাংলার মাটিতে তাদের ভিত্তি পাকাপোক্ত করে ফেলেছে। এই বিষবৃক্ষটি নিজেকে আরো শক্তিশালী ভাবে বহুদিন টিকিয়ে রাখার মানসে- প্রগতিশীলতার ঝড়-ঝাপটা থেকে বাঁচাতে- প্রতিক্রিয়াশীলতার চর্চা বাংলার আকাশে বাতাসে পরিব্যাপ্ত করতে- নিউজপ্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক প্রচার মাধ্যমের মোটা ও শক্ত বাকল তৈরী করেছে।

শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরে তৈরি হচ্ছে নতুন ইতিহাস...

জনতার কেবল জনতাই আছে। আপনার কাছাকাছি লোকটা সে-ই, যে আপনার পাশে কাঁধে কাঁধ হাতে হাত নিয়ে চলছে। মসনদের আমরা কেউ নই, মসনদের সনদ আমরাই দিই বা ফেলি, কেননা জাহানারা আজো আমাদের ইমাম। (ফারুক ওয়াসিফ)

ধর্ম ভিত্তিক রাজনীতির বিষবৃক্ষ

বাংলার মাটিতে ধর্মভিত্তিক রাজনীতির বিষবৃক্ষের শিকড় অনেক গভীরে প্রোথিত । এই বিষবৃক্ষটি বাঙ্গলার গনমানুষের কু-সংস্কার , অজ্ঞানতা ,অসচেতনতা ও ধর্মীয় গোড়ামীকে পুজি করে বাংলার মাটি থেকে জারক রস সংগ্রহ করে চলেছে । এবং শিক্ষা ,চিকিতসা ও ব্যাংকিং সংক্রান্ত অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানের মোটা মোটা শিকড় তৈরী করে , বাংলার মাটিতে তাদের ভিত্তি পাকাপোক্ত করে ফেলেছে । এই বিষবৃক্ষটি নিজেকে আরো শক্তিশালী ভাবে , বহুদিন টিকিয়ে রাখার মানসে, প্রগতিশীলতার ঝড়-ঝাপটা থেকে বাচাতে প্রতিক্রিয়াশীলতার চর্চা বাংলার আকাশে বাতাসে পরিব্যাপ্ত করতে ; নিউজপ্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক প্রচার মাধ্যমের মোটা ও শক্ত বাকল তৈরী করেছে । ধর্মীয় গোড়ামী

Pages