slideshow 1 slideshow 2 slideshow 3

You are here

খন্দকার মোশতাককে রাষ্ট্রপতি ঘোষণার অনুষ্ঠানে সামরিক লোকদের মধ্যে বেসামরিক ছিলেন, তাহের উদ্দিন ঠাকুর, হাসানুল হক ইনু ও আনোয়ার হোসেন(4)

শেখ মুজিবকে হত্যা করা হয়েছে। সকাল সাড়ে ৭টায় মেজর রশিদ খন্দকার মোশতাক আহমদের বাসায় হাজির হন। তাকে ঢাকা বেতারকেন্দ্র নিয়ে আসা হয় এবং রাষ্ট্রপতি হিসাবে ঘোষণা দেওয়া হয়। ডালিম ১০ টায় তিন বাহিনীর প্রধানকে বেতার কেন্দ্র নিয়ে আসেন। তাদের সঙ্গে সেনাবাহিনীর উপপ্রধান জিয়াউর রহমান ও সিজিএস খালেদ মোশারফ ছিলেন। সেনাপ্রধান মেজর জেনারেল সফিউল্লা, বিমানবাহিনীর প্রধান এয়ার ভাইস মার্শাল একে খন্দকার এবং নৌবাহিনীর প্রধান কমোডোর এমএইচ খানের নতুন রাষ্ট্রপতির প্রতি আনুগত্য জানিয়ে বিবৃতি রেকর্ড করা হয়। বিডিআরের প্রধান মেজর জেনারেল খলিলুর রহমান ও পুলিশের মহাপরিদর্শক নুরুল ইসলামকেও একি উদ্দেশে ডেকে আনা হয়। বিএনপির সময় অসময় বইয়ে লেখক মহিউদ্দিন আহমেদ মোশাতাকের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানকে এভাবে বর্ণনা করেন।
তিনি বইয়ে উল্লেখ করেন, কয়েকজন সাবেক সেনা কর্মকর্তা সমর্থন ও অভিনন্দন জানাতে বেতার কেন্দ্র উপস্থিত হয়েছিলেন। তাদের মধ্যে ছিলেন, আবু তাহের, আকবর হোসেন, শাহজাহান উমর, জিয়াউদ্দিন, রহমতউল্লা, মাজেদ ও পাকিস্তান সামরিক একাডেমির সাবেক ক্যাডেট মোস্তাক ও সরাফত। অসামরিক ব্যাক্তিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, তাহের উদ্দিন ঠাকুর, গণবাহীনীর উপপ্রধান, হাসানুল হক ইনু, এবং ঢাকা মহানগরীর প্রধান আবু তাহেরের ছোট ভাই আনোয়ার হোসেন। বেলা ১১ টায় সরকারের প্রতি আনুগত্য দেখাতে ডেকে আনা হয়, রক্ষিবাহিনীর উপপরিচালক, সারোয়ার হোসেন মোল্লা, ও আনোয়ার উল আলমকে।

12345
Total votes: 189

মন্তব্য