slideshow 1 slideshow 2 slideshow 3

You are here

শেখ মুজিবের বিকল্প হতে জিয়াকে রশিদের অনুরোধ। জিয়ার নির্দেশ রশিদকে আরকোন সাক্ষাৎনয়

ফারুক ও রশিদ এমন একজনকে খুঁজছিলেন, যিনি শেখ মুজিবের বিকল্প হতে পারেন। তাঁদের প্রথম পছন্দ সেনাবাহিনীর উপপ্রধান মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমান। তিনি পকিস্তানি মিলিটারি অ্যাকাডেমিতে ফারুক ও রশিদের প্রশিক্ষক ছিলেন। সেনাবাহিনীতেও ছিলেন বেশ জনপ্রিয়। তাদের মনে হলো দেশের দু:সময়ে জিয়ারমতো একজন নেতার দরকার। জিয়ার সঙ্গে রশিদের যোগাযোগ হলো।
১৯৭৬ সালে লন্ডনের গ্রানাদা টেলিভিশনে অ্যান্তনি ম্যাকারেনহাসকে দেওয়া সাক্ষৎকারে জিয়াউরহমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ প্রসঙ্গে রশিদ বলেন, ১৯৭৫ সালের ২০ মার্চ সন্ধায় আমি তার সঙ্গে সাক্ষাতের ব্যাবস্থা করতে সক্ষম হই। রশিদ ম্যাকারেনহাসকে বলেন, আপনার মনে রাখা দরকার আমি সামরিকবাহিনীর উপপ্রধান একজন মেজর জেনারেলের সঙ্গে কথা বলছিলাম। যদি আমি তাকে সরাসরি বলতাম আমি দেশের প্রেসিডেন্টকে সরাতে চাই। সেক্ষেত্রে নিজের সাস্ত্রিদের দিয়ে সেখানেই আমাকে গ্রেফতার করে সরাসরি জেলে পাঠিয়ে দেওয়ার সম্ভাবনা ছিল। তাই আমাকে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে কথাটি বলতে হয়েছে। আমি বলেছিলাম দেশে ব্যাপকভাবে দুর্নীতি চলছে। কিছুই ঠিকঠাকভাবে চলছে না। এটি শুনে জিয়া বললেলন চলো লনে গিয়ে আলাপ করি।
পরে লনে গিয়ে বলেছিলাম আমাদের এ অবস্থার পরিবর্তন দরকার। আমরা জুনিয়র অফিসাররা এরমধ্যেই পরিকল্পনা করেছি। আমরা আপনার সমর্থন ও নের্তৃত্ব কামনা করি। জিয়াউর রহমান বললেন, আমি দু:খিত এ ধরণের কিছুর মধ্যে আমি জড়াতে চাইনা। যদি তোমরা কিছু করতে চাও , সেক্ষেত্রে জুনিয়র অফিসারদের নিজেদের তা করা উচিৎ। তবে এই কথা তিনি প্রেসিডেন্টকে জানাননি। কিন্তু নিজের এডিসিকে নির্দেশ দিয়েছিলেন যে আমাকে আর কোন সাক্ষাৎকার দেওয়া হবে না।

12345
Total votes: 164

মন্তব্য