slideshow 1 slideshow 2 slideshow 3

You are here

জনগন মানেই নিরপেক্ষ তাদের ধর্ম অবশ্যই ধর্মনিরপেক্ষ

রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম এটি কিন্তু জনগণ আন্দোলন করে আনেনি। বরংচ জনগণের প্রত্যেকটি আন্দোলনে ধর্মনিরপেক্ষতার কথাই বলা হয়েছে। এটি মুক্তিযুদ্ধই হউক আবার এরশাদ বিরোধি আন্দোলনই হউক। বাংলাদেশের জন আন্দোলনের একটি প্রধান দিক হলো ধর্মনিরপেক্ষতা। কিন্তু শাসক শ্রেণীর মাথায় অন্য রকম চিন্তা থাকে। তারা জনগনকে বিভিন্নভাবে বোকা বানাতে চায়। ক্ষমতায় থাকতে বা ভোট নিতে ফন্দি ফিকির বের করে।
আদালত, পুলিশ, জেলখানা সামরিক বেসামরিক প্রশাসন সব মিলেইতো রাষ্ট্র। সুতরাং রাষ্ট্রের একটা প্রতিষ্ঠান যদি ফন্দি করে অন্য প্রতিষ্ঠানগুলোও ফন্দি করতে বাধ্য। বা ফন্দিতে থাকতে বাধ্য। তারপরেও ব্যতিক্রম হয়। বাংলাদেশে হয়তো এরকম ব্যাতিক্রমি মানুষ আর নেই। খুব বেশি দিন আগের কথা না। মাত্র মাস ৬ আগের কথা। পত্রিকায় খবর এসেছে। এমনকি পাকিস্তানের পত্রিকাতেও। পাকিস্তানের প্রধান বিচারপতি পাকিস্তানকে ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র করার জন্য মতামত দিয়েছে। তারমতে পাকিস্তানে  মুসমানদের সংখ্যাবেশি হলেও রাষ্ট্রের ক্ষেত্রে ধর্মনিরপেক্ষ হওয়া দরকার। তিনি বাংলাদেশের উদাহরণ দিয়ে বলেন, পাকিস্তান  থেকে বাংলাদেশ ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র হিসাবে জন্ম নিয়েছিল তাতে ইসলাম ধর্মের কোন ক্ষতি হয়নি। তিনি বিশ্বের দুটি ইসলাম সংখ্যা গরিষ্ঠ দেশের কথাও বলেন। তিনি বলেন ইন্দোনেশিয়া ও তুরস্ক ধর্মনিরপেক্ষতা রয়েছে তাতেও কোন সমস্যা হচ্ছে না। যাই হউক আগেই আমি বলেছি জনআন্দোলনের কথা। বাংলাদেশে এটি হামেশাই হয়। আসলে জনগণ মানেইতো নিরপেক্ষতা। না হলে আন্দোলন কোত্থেকে হবে। এখন রাষ্ট্র যা করছে করুক না। আরো অনেক কিছুই করুক।  এর বিপরীত প্রতিক্রিয়া কিন্তু নিরপেক্ষ। বুদ্ধিমান রাষ্ট্র আগেই নিরপেক্ষতাকে গ্রহণ করে। বোকা রাষ্ট্র দমন পিড়ন চালায়।
 

12345
Total votes: 352

মন্তব্য