slideshow 1 slideshow 2 slideshow 3

You are here

নন্দীভৃঙ্গি-এর ব্লগ

আড্ডা পূরাণ: অন্তর্ধ্যান পর্ব

ঘোর কলিকাল। নয়ত ‘বাবা’র কথা এতদিন ভূলে থাকলাম কিভাবে! সেদিন, হঠাৎ কি মনে করে গ্যারাজ থেকে সব জঞ্জাল টেনে বের করল আমার বউ। ভাগ্যিস!

স্বত:স্ফুর্ততাই এই আন্দেলনের শক্তি। বিরতি নয় গতি চাই।

আরও একটি লাশ পড়েছে। ব্লগার রাজীব হায়দারকে (থাবা বাবা) হত্যা করা হয়েছে। 

আন্দোলনকে নিয়মে বাঁধবার কর্মসূচী শুনে, কাল রাতে মন খারাপ নিয়ে ঘুমাতে গিয়েছিলাম । নিয়ম মেনে দুটো জিনিষ হয় না - আন্দোলন (যুদ্ধ) আর প্রেম। নিয়ম বেঁধে দেয়ায় মনে হয়েছিল, আন্দেলনের অর্জন শেষ পর্যন্ত না কেবল ট্রাইবুনালের আপীল বিষয়ক ধারাটি পরিবর্তন পর্যন্তই থমকে থাকে। কারন আন্দোলন একবার ঘরে (বিরতিতে/বিশ্রামে) ফিরে গেলে সেই ফাঁকা জায়গায় এসে দাঁড়ায় বিভ্রান্তি - ষড়যন্ত্র। বন্যার জলের মত - থাকে উপকারী পলী আবার মিশে থাকে নানা রোগ বালাই। একবার ঘরে ফিরে গেলে শ্রান্ত সৈনিক আক্রান্ত হন সুবিধাবাদের নানা প্ররোচনায়। গতকাল রাতে ৩ টা থেকে ১০টার সূচী ঘোষনার পর থেকে সোশাল মিডিয়াগুলোতে আসা নানা মন্তব্য পড়লে আমার বক্তব্যের ইঙ্গিত স্পষ্ট হবে।

আজকে নয়

প্রীতিলতা শিখিয়ে গেছে, লড়াই করে বাঁচতে হবে

 

মেয়ে তুমি বহ্নিশিখার মত জ্বলে জ্বলে,

জ্বেলে দিয়ে গেছ অগণন মৃত্যুহীন তারা।

আঁধার জমে জমে অন্ধ বধির;

আহুত

 তুমি ডাকলে,

গণজাগরণই নেতৃত্ব তৈরী করে নেয়

আজকে দৈনিক আমাদের সময়ে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উদ্ধৃতি সমেত একটি সংবাদ ছাঁপা হয়েছে, এই লিঙ্কে দেখুন। বিভ্ন্নি দৈনিকে, টিভিতে অহর্নিশি দুই নেত্রী এবং গনতন্ত্রের অন্যান্য ধ্বজ্জাধারীদের আমরা এতবার পড়ি বা দেখি যে, প্রায়শই আমরা সেগুলো তেমন একটা আমলে নিই না। আর নিলেই বা কি! কার কি যায় আসে? তবুও কেন জানি সংবাদটি আমার কাছে অর্থপূর্ণ মনে হল। কারন এ কথা তো মানতেই হবে যে উনাদের ঘটে বুদ্ধি আমাদের তুলনায় অনেক বেশই ধরে। নইলে কি আর গণতন্ত্রের আফিম খাইয়ে দুই দল মিলে এমন বুঁদ করে রাখতে পাড়ত ১৬ কোটি পুঙ্গবকে!

স্বাধীনতা

স্বাধীনতা মানে যা ইচ্ছে তাই!

স্ট্যাটিস্টিক্সের লেকচারে হাই,

বরং মিতালীর খোলা চুলে বিশ্ব ভ্রমন।

আড্ডা পূরাণ - অনুসন্ধান পর্ব

আড্ডা পূরাণ

একটা কথা প্রচলিত আছে না, ‘চায়ের কাপে ঝড়’। নারায়নগঞ্জের ইলেকশন বা সিলেকশন, লংমার্চ, লোকমান হত্যা কিংবা কার কি গোপন ভিডিও রিলিজ হল, জাতীয় বা আন্তর্জাতিক - আড্ডায় নিত্যদিন উঠে এই ঝড়। বড় ক্ষণস্থায়ি। চায়ের কাপে পাক খেতে খেতে উঠা ধোঁয়ার মত আয়েশী। তাই বোধ করি কোন রসিক কবি এমন বলেছিলেন। তা তিনি তো বলেই খালাস। এদিকে আড্ডা দিতে গিয়ে কথাটা মনে হলেই যে নুন দেয়া জোঁকের মত গুটিয়ে যাই। এর বিহিত করবে কে?