slideshow 1 slideshow 2 slideshow 3

You are here

মুনতাসির মামুন-এর ব্লগ

আজ সারাদিন

আমি মানুষটা ভীতু প্রকৃতির । বিপদ দেখলে দৌড়ে গর্তে লুকিয়ে পড়ব এটাই আমার স্বভাব । আমি কাউকে বিপদে ফেলি না , কারো  বিপদে সাহায্যও করি না । তবে  বিপদ থেকে কিভাবে নিজেকে বাঁচানো যায় , আমি সবসময় এই ভাবনায় মশগুল । কিন্তু বিপদ এমন এক বন্ধু যা বলে কয়ে আসে না । আর এসেই ব্যাটা সোজা ঘাড়ের উপর চড়ে বসে ।

আবার তোদের ফিরে পেলাম

 জীবনে ভালোবাসা নেই এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল । একটিমাত্র জীবনে কোন না কোন সময় ,কোন না কোন ক্ষণে  ভালবাসা আসবেই । ভালবাসা বলতে শুধুমাত্র প্রেমিক প্রেমিকার ভালোবাসার কথা বলছি না । মা বাবাকে ভালবাসা , ভাই-বোনকে ভালবাসা , বন্ধুদের প্রতি ভালবাসা , অন্য জীবের প্রতি ভালবাসা , ভালোবাসার আরও কত যে প্রকারভেদ আছে তা আমার সঠিক জানা নেই

প্রেতাত্মার চিঠি

 ছুটির দিন ।তাই চেয়ারে আরাম করে গা এলিয়ে দিয়ে বসে চা খাচ্ছিল রুদ্র ।চায়ের কাপ থেকে ধোঁয়া উড়ছে ।সামনের টেবিলে বিস্কিট রাখা আছে  কিন্তু সে ছুঁয়ে দেখছে না । রুদ্রের হাতে আজকের প্রত্রিকা ।সকাল সকাল বেশ গরম খবর বেরিয়েছে। প্রত্রিকা বেশ মনযোগ দিয়ে পড়া উচিত ।প্রত্রিকায় যা ছাপে সবই বাস্তব ঘটনা ।রুদ্র বিশ্বাস করে পৃথিবীতে নতুন কোন কিছুই ঘটে না ।যা ঘটে সবই হল পুরনো ঘটনার নতুন রুপ ।প্রত্রিকা পড়ার সময় কেউ যদি বার বার এসে ডিস্টার্ব

একটি সাধারন মামলা

আব্দুল্লাহপুর । ঢাকা শহরের একেবারে শেষ সীমানা । যাদের বাড়ি গাজীপুর,ময়মনসিংহ জেলায় বা উত্তরবঙ্গের  জেলাগুলোতে  তারা এই রুটটিকে মুখস্থ করে রেখেছেন । প্রতিদিন অসংখ্য লোক এই রাস্তা দিয়ে ঢাকাশহরে প্রবেশ করেন কাজের খোঁজে।আব্দুল্লাহপুরের শুরতেই চোখে পড়ে  হকারদেরকারসাজিতে।রাস্তায় কত যে জিনিসের দোকান নিয়ে বসেছে তারা তার কোন হিসেব নেই ।আসলাম মিয়া আজ দুই বছর হল ব্যবসা করছেন আব্দুল্লাহপুরের এই অঘোষিত হকার মার্কেটে । ছোট একটু জায়গা বরাদ্দ পেয়েছেন তার ব্যবসার জন্য তাও আবার প্রতিদিন চাঁদা দাও ।নইলে আরও দশজন লাইনে দাঁড়িয়ে আছে জায়গাটি পাওয়ার জন্য । আসলাম মিয়া এক শ্বাসে হাঁকিয়ে

আমার স্কুলের গার্লফ্রেন্ড

 শুক্রবার সাধারানত সবার ঘুম ভাঙ্গে অনেক দেরিতে। সারা সপ্তাহের কাজ শেষে একদিনই  তো ছুটি পাওয়া যায়। না ঘুমালে কি হয় ?

লাল মুখোশ

 ‘রোদেলা , রোদেলা । আমার নাম রুদ্র । আমার দিকে তাকাও । ‘ রুদ্র  রোদেলাকে কোমল  স্বরে বলল ।

আর কত মানুষ মরলে আমরা সচেতন হব ?

 বাংলাদেশের অর্থনীতি সম্পর্কে যে যাই বলুক না কেন আমরা জানি অন্যান্য গনতান্ত্রিক দেশের শক্তিশালী অর্থনীতি তুলুনায়  আমাদের দেশের অর্থনীতি অনেকটাই দুর্বল আর এই দুর্বল  অর্থনীতিকে কয়েক দশক ধরেই ঘাড়ে নিয়ে বয়ে চলেছ আমাদের এই গার্মেন্টস

জীবন-যাপন

 বেশ কয়েক দিন ধরেই  বাসায় ফিরতে দেরি হয়ে যাচ্ছে  নাজমুলের । মালেক গার্মেন্টসে তৈরি পোশাক আয়রনের কাজ করে নাজমুল প্রায় পাঁচ বছর ধরে । নাজমুলের সহকর্মীরা  নাজমুলকে  ডাকে ‘ আয়রন ম্যান ‘  নামে । ঘড়িতে প্রায় বারোটা বাজে । গার্মেন্টসের সিকিউরিটি গার্ড নাজমুলকে জিজ্ঞেস করল , “আয়রন ম্যান , ভাই । বাড়ি যাবেন না ? “